শমশেরনগর-কমলগঞ্জ সড়ক : ভোগান্তির ৯০০ মিটার

বুধবার, ০৯ অক্টোবর ২০১৯ | ৫:২৫ অপরাহ্ণ | 40

শমশেরনগর-কমলগঞ্জ সড়ক : ভোগান্তির ৯০০ মিটার

মৌলভীবাজারের শমশেরনগর-কমলগঞ্জ একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। শমশেরনগর বিমানবন্দর এলাকা থেকে কমলগঞ্জ হয়ে শ্রীমঙ্গল পর্যন্ত সাড়ে ২০ কিলোমিটার সড়কের বড় ধরনের উন্নয়ন কাজ চলমাণ থাকলেও বাদ পড়া ৯০০ মিটার সড়ক নিয়ে যাত্রী ও যানবাহনের সবচেয়ে বেশি ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। শমশেরনগর ও কমলগঞ্জ বাজার এলাকার উন্নয়ন কাজ থেকে বাদ পড়া ৯০০ মিটার সড়ক এখন বেহাল অবস্থায় থাকায় চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন কমলগঞ্জবাসী।

মৌলভীবাজারের সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, কমলগঞ্জ-শমশেরনগর-শ্রীমঙ্গল সড়কের ২০ দশমিক ৫ কিলোমিটার সড়কে সাড়ে ৪৭ কোটি টাকার বড় ধরনের উন্নয়ন কাজ চলছে। এ উন্নয়ন কাজের প্রায় ৮৫ ভাগ ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়ে গেছে। তবে শমশেরনগর বাজারের কালীবাড়ি সংলগ্ন এলাকার ৫০০ মিটার ও কমলগঞ্জ উপজেলা সদরের উপজেলা চৌমুহনী ও ভানুগাছ বাজারের ১০ নম্বর গলি থেকে ভানুগাছ চৌমুহনী এলাকার আরও ৪০০ মিটার সড়ক বাদ পড়েছে উন্নয়ন কাজ থেকে। ফলে অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে এই ৯০০ মিটার সড়কে এখন বড় ধরনের গর্তের সৃষ্টি হয়ে সেসব গর্ত কাদা-পানিতে ভরে গেছে। সাথে সাথে জনদুর্ভোগও বেড়ে গেছে।

শমশেরনগর-শ্রীমঙ্গল সড়কের বাসচালক আলী আজম ও সিএনজি অটোরিকশার চালক মনির মিয়া বলেন, দীর্ঘ কয়েক বছর অপেক্ষার পর শমশেরনগর-কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সড়কে বড় ধরনের উন্নয়ন কাজ এখন শেষ পর্যায়ে। তবে শমশেরনগর-কমলগঞ্জ সড়কের ৯০০ মিটার এই উন্নয়ন কাজের বাইরে ছিল। চাতলাপুর স্থল শুল্ক স্টেশন হয়ে ভারতের উত্তর ত্রিপুরায় সিমেন্টসহ বাংলাদেশি পণ্য ও ভারত থেকে আপেল ও কমলাবাহী ভারী যানবাহনের সাথে অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে বাদ পড়া সড়ক এলাকা ভেঙ্গে বড় ধরনের গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এসব গর্ত দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চালাতে হয়। আর ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে এসব গর্ত কাদা-পানিতে ভরে যায়। এসব গর্ত অতিক্রমকালে অনেক সময় যানবাহনের যন্ত্রাংশ ভেঙ্গে যায়।

শমশেরনগর ইউনিয়ন পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি নির্মল দাস বলেন, কালীবাড়ি ও দুর্গা মন্দির সংলগ্ন এলাকার সড়ক ভেঙ্গে বড় ধরনের গর্ত সৃষ্টিতে কাদা-পানি অতিক্রম করে ভক্তরা মন্দিরে প্রবেশ করছেন খুবই কষ্টে। তাছাড়া সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এই এলাকায় কমপক্ষে ১০ বার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। তখন ভক্তদের ভোগান্তি আরও বেড়ে যায়।

শমশেরনগর সুজা মেমোরিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ ম. মুর্শেদুর রহমান ও হাজী মো. উস্তওয়ার বালিকা উচ্চবিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আইয়ূব আলী বলেন, এই এলাকার ভাঙ্গা সড়কের কারণে শিক্ষার্থীরা চরম দুর্ভোগের মাঝে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করে ভাঙ্গাচোরা সড়কের উন্নয়ন করা উচিত।

তবে মৌলভীবাজারের সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আরিফ হোসেন বলেন, আগের দরপত্রে উল্লেখিত ৯০০ মিটার অন্তর্ভুক্ত ছিল না। বাদ পড়া এই এলাকায় সিসি ঢালাই কাজ হবে। নতুন করে আগের উন্নয়ন কাজের সাথে এই বাদ পড়া এলাকা সংযুক্তি করে উন্নয়ন কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। খুব শিগগিরই দরপত্র হলে ভাঙ্গাচোরা ৯০০ মিটার সড়কের উন্নয়ন কাজ শুরু হয়ে যাবে বলে তিনি মনে করেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

Development by: webnewsdesign.com