আপডেট

x


কুলাউড়ায় আজিজুর রহমানের রোগমুক্তি কামনায় ও খছরুজ্জামান স্মরণে দোয়া অনুষ্ঠিত

রবিবার, ০৯ আগস্ট ২০২০ | ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ | 212

কুলাউড়ায় আজিজুর রহমানের রোগমুক্তি কামনায় ও খছরুজ্জামান স্মরণে দোয়া অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক:: করোনা আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় চিকিৎসাধীন মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, স্বাধীনতা পদকে ভূষিত বীরমুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমানের রোগমুক্তি কামনায় ও কুলাউড়া উপজেলা যুবলীগের আজীবন সভাপতি প্রয়াত খছরুজ্জামানের ১৯ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে তার স্বরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (৮ আগস্ট) সাপ্তাহিক কুলাউড়ার সংলাপ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক আওয়ামীলীগ নেতা অধ্যক্ষ সিপার উদ্দিন আহমদের আয়োজনে সন্ধ্যা ৭ টায় সংলাপ কার্যালয়ে এই দোয়া অনুষ্টিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন গনকিয়া মাদ্রাসার সুপার, কুলাউড়া রেলওয়ে জামে মসজিদের খতিব মাও. আইয়ুব আনসারী।



দোয়া মাহফিলে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন খছরুজ্জামানের ভাই ইণ্জিনিয়ার মোঃ কামরুজ্জামান অ্যাড. তাজুল ইসলাম. উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মােঃআব্দুস শহীদ. সাধারন সম্পাদক প্রভাষক মইনুল ইসলাম সবুজ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারন সম্পাদক এহসান আহমদ টিপু. উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হোসেন আল নাহিয়ান, খছরুজ্জামানের পুত্র পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক তারেক হাসান, বরমচাল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক তাজ খান, সাংগঠনিক সাইদুল হাসান সিপন, আওয়ামীলীগনেতা বাছিতুজ্জামান খান ফয়ছল, যুবলীগনেতা আব্দুল মুক্তাদির, কুলাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের ১ম যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন লিটন, সংলাপ পত্রিকার সম্পাদক অধ্যক্ষ সিপার উদ্দিন আহমদ, কুলাউড়া সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া আল জেবু, মানবাধিকার কমিশনের আন্তজার্তিক বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মামুন, স্বেচ্ছাসেবকলীগনেতা জাহেদুল ইসলাম লিপন, আওয়ামীলীগনেতা মাহবুব হাসান রুবেল, আওয়ামীলীগনেতা শেখ আবুবক্কর সেলিম, স্বেচ্ছাসেবকলীগনেতা সাকিম আহমদ, ছাত্রলীগনেতা সাইদুল ইসলাম প্রমূখ।

এদিকে খসরুজ্জামানের এর পুত্র মোঃ তারেক ১৯তম মৃত্যু বার্ষিকীতে পরিবারের পক্ষ থেকে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনায় কবর জিয়ারত ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

উল্লেখ্য মোঃ খসরুজ্জামান পচাত্তর পরবর্তি সময়ে দলের দুঃসময়ে ১৯৮৬ সালে উপজেলা যুবলীগের সভাপতির দায়িত্বভার গ্রহন করেন। তিনি কুলাউড়া শহরে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার চেয়ে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেন। একজন ত্যাগী ও আদর্শবান নেতা হিসেবে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি করেছেন এবং দলকে সু-সংগঠিত করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে নিবেদিতভাবে কাজ করে গেছেন। তৎকালীন কুলাউড়া স্টেশন রোডের জহুরা মার্কেট (বর্তমান ইষ্টার্ন শপিং সেন্টার) তাঁর ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান জামান ট্রাভেলসকে কেন্দ্র করে যুবলীগ, আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের কর্মকান্ড পরিচালিত হতো। তিনি ২০০১ সালের ৮ আগস্ট মৃত্যুর দিন পর্যন্ত দু’মেয়াদে একাধারে ১৫ বছর বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কুলাউড়া উপজেলা শাখার আমৃত্যু সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

Development by: webnewsdesign.com