কর্মধা রাজঘাটের ফানাই ব্রীজ তৈরিতে অনিয়মের অভিযোগ

মঙ্গলবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯ | ১:৪৮ অপরাহ্ণ | 503

কর্মধা রাজঘাটের ফানাই ব্রীজ তৈরিতে অনিয়মের অভিযোগ

মৌলভীবাজার কুলাউড়ার কর্মধা ইউনিয়নের নলডরি ও নুনা গ্রামের সংযোগ রাজঘাটের ফানাই নদীর ব্রীজের কাজে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে ।

গত মাস নভেম্বর ১ তারিখ থেকে রাজঘাটের ব্রীজের কাজ শুরু হয় আর নভেম্বর ভিতরে ঐ মাসে ব্রীজের কাজ সম্পুর্ন হয়। সরেজমিনে গেলে ব্রীজটি দেখতে অনেকে অবাক হয়েছেন এই ব্রীজের কাজ কি অল্প সময়ে সম্পুর্ন হলো , অবাক হওয়ার কথা নদী থেকে ব্রীজটি অনেক ছোট এবং ব্রীজটি দাড়িয়েছে নদীর মধ্যেকার জায়গায় নদীর দুই পাশে প্রচুর পরিমাণ জায়গা রয়েছে , কাছে গেলে দেখাযায় এটি ব্রীজ নয় ছোট একটা কালভার্ট অনেকেই ভাববে মনে হয় সুইসগেট বসাবে , আতংকে আছেন ব্রীজের উজানের এলাকাবাসী বর্ষাকালে যে হারে পাহাড়ী ঢলের পানি প্রবাহিত হয় এতো ছোট ব্রীজের নিচ দিয়ে কি করে এতো পানি প্রবাহিত হবে। এলাকা বাসী ব্রীজটি তলিয়ে যাবার আশংকা করছেন। ঠিকাদার দুইজন জামাল উদ্দিন ও তুহিন এই দুজন ঠিকাদার ৩৩ লাখ টাকার ব্রীজের কাজ পেয়ে বিভিন্ন অনিয়মের মধ্যে ব্রীজের কাজ সম্পুর্ন করেছেন। কর্মধার স্থানীয় লোকদের কথা অনুযায়ী জানাযায় ব্রীজের পিলার এতো গভীর করে বসানো হয়নি , কথা ছিলো মেশিন দিয়ে বোরিং করে ব্রীজের পিলার বসানো কিন্তু ঠিকাদারের লোকজন তা করেনি। ঠিকাদারের লোকজন দেশী কোদাল দিয়ে এতো গভীর না করে সামান্য গভীর করে ব্রীজের পিলার বসানো হয় তাও আবার পিলারের নিচে তিন নম্বর ইট দিয়ে সলিং করে পিলার বসানো হয়। ব্রীজের দুই পাশে প্রচুরপরিমাণ নদীর জায়গায় ছিলো তাহলে এই ব্রীজটি এতো ছোট করার কি প্রয়োজন ছিলো কর্মধার জনমানুষের প্রশ্ন। কর্মধা ইউনিয়নের অনেকেইর কাছে রাজঘাটের ফানাইর ব্রীজের ব্যাপারে কথা বল্লে তারা জানান কর্মধা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান (এম এ রহমান আতিক) চেয়ারম্যান যেভাবে বলেছেন ঠিকাদারকে চেয়ারম্যানের কথা অনুযায়ী ঠিকাদার ব্রীজের কাজ করিয়েছে।



কর্মধা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম এ রহমান আতিকের কাছে রাজঘাটের ফানাইর ব্রীজের ব্যাপারে জান্তে চাইলে তিনি বলেন এই ব্রীজ সঠিক জায়গায় হয়েছে এবং ভালো হয়েছে। ব্রীজের উজানের এলাকাবাসী আতংকে আছেন এতো ছোট ব্রীজ কালভার্টের মতো ফানাই নদীর মতো জায়গায় এই ব্রীজের নিচ দিয়ে বর্ষাকালীন পাহাড়ী ঢলের এতো পানি প্রবাহিত হবেনা ব্রীজের উজানের এলাকায় হয়তো ঘর বাড়ি পানির নিচে থাকবে। এলাকা বাসী ও সচেতন মহল মনে করেন সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ কে এ ব্যাপারে উদ্যোগী হয়ে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করে কার্যকর ভুমিকা পালন করার প্রত্যাশা করছেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

Development by: webnewsdesign.com