পশুর হাটে ক্রেতার চেয়ে দর্শনার্থী বেশি

মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২ | ১০:৪১ অপরাহ্ণ | 48

পশুর হাটে ক্রেতার চেয়ে দর্শনার্থী বেশি

নিউজ ডেস্ক:: আর মাত্র চার দিন পর মুসলিমদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা। এই ঈদকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে বরিশালের বিভিন্ন পশুর হাটে আসতে শুরু করেছে মানুষ। তবে এখনো জমে ওঠেনি ক্রয়-বিক্রয়। অনেকেই এখনো পশু দেখছেন। করোনা মহামারির পূর্বে বিভিন্ন স্থানে ঈদের ৭-১০ দিন আগেই পশুর হাট জমে উঠত। তবে সেই চিত্র এখন আর নেই। কেউ কেউ বলছেন, করোনার প্রভাবে অর্থনৈতিক ধাক্কা সামলে উঠতে না পেরে অনেকেই কোরবানি দেওয়ার সামর্থ হারিয়েছেন।

বরিশাল সিটি করপোরেশন ও জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, মঙ্গলবার (৫ জুলাই) পর্যন্ত মোট ৬২টি পশুর হাটের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে সিটি করপোরেশন স্থায়ী একটি এবং অস্থায়ী দুটি মিলিয়ে মোট ৩টি এবং জেলা প্রশাসন স্থায়ী-অস্থায়ী মিলিয়ে ৫৯টি হাটের অনুমতি দিয়েছে।



সিটি করপোরেশনের হাট-বাজার শাখার পরিদর্শক রেজাউর করিম বলেন, তিনটি হাটের মধ্যে বাঘিয়া এলাকার স্থায়ী একটি হাটের পাশাপাশি রূপাতলী ও কাশিপুর এলাকায় একটি করে অস্থায়ী হাট বসবে। এগুলোর নির্মাণ শেষ। পশু উঠতে শুরু করেছে হাটগুলোতে।

স্থানীয় সরকার বরিশালের উপপরিচালক শহিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, আজ পর্যন্ত আমরা ৫৯টি হাটের অনুমতি দিয়েছি। এ ছাড়া হাটে ক্রেতা হয়রানি বন্ধে ভিজিলেন্স টিম কাজ করবে। পাশাপাশি করোনা প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে কঠোর অবস্থানে থাকবে প্রশাসন। বরিশাল জেলার ১০ উপজেলায় মোট ২২টি স্থায়ী পশুর হাট রয়েছে। এ ছাড়া বাকি ৪৯টি অস্থায়ী হাটের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পশুর হাট জমজমাট না হলেও গৃহস্থের বাড়ি থেকে পশু ক্রয়-বিক্রয় চলছে আরও সপ্তাহখানেক আগে থেকেই। মূলত মাঝারি আকৃতির এবং ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকায় এই অঞ্চলে গৃহস্থের গরুর প্রতি আগ্রহ বেশি।

উজিরপুরের বাসিন্দা আনিসুর রহমান, মকবুল হোসেন এবং বেলায়েত মির বলেন, এখনো অনেকেই গ্রামের গৃহস্থের গরু খুঁজচ্ছে। এই গরু যেমন দামেও ভালো তেমনি স্বাদও ভালো। অন্য অঞ্চলের গরু হাটে উঠবে। সেগুলো কেবল আসতে শুরু করেছে। আমরা গৃহস্থের কাছ থেকে গরু কিনেছি।

রূপাতলী অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারাদার সাফিন মাহমুদ তারিক বলেন, আজকে দোয়া-মোনাজাতের মধ্য দিয়ে হাটের উদ্বোধন করেছি। আমাদের হাট জমতে আরও দুই দিন সময় লাগবে। বিগত দিনেও ঈদের দুই দিন আগে আমাদের হাট জমত। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না।

চরমোনাই ইউনিয়নের পশুর হাটের বিক্রেতা সোলায়মান হোসেন বলেন, বরিশালের মধ্যে সবচেয়ে বড় পশুর হাট এটি। এখানে প্রতিদিনই অনেক লোক আসছেন। কিন্তু সে তুলনায় পশু তেমন বিক্রি হচ্ছে না। মানুষ এখনো পশু দেখছেন। ঈদের দুই দিন আগে বিক্রি জমে উঠতে পারে।

এদিকে বরিশাল সিটি করপোরেশন থেকে জানিয়েছে, ৩০টি ওয়ার্ডে পশু জবাইয়ের জন্য ১৪২টি স্পট নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। আর কোরবানির দিনে চার ঘণ্টার মধ্যে বর্জ্য অপসারণ করার ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ।

বরিশাল মেট্রেপলিটন পুলিশের উপকমিশনার শেখ মো. সেলিম জানান, আসন্ন ঈদুল আজহায় ঘরে ফেরা মানুয়ের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে মেট্রোপলিটন এলাকার মহাসড়কে থ্রি হুইলার পার্কিংয়ে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি যাত্রীপূর্ণ করে টার্মিনাল থেকে গাড়ি বের হবে। কাউন্টার ব্যতীত কোথাও টিকিট বিক্রি হবে না, অতিরিক্ত যাত্রী বহন করা যাবে না এবং অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা যাবে না বলে বাস মালিকদের সঙ্গে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সৌজন্যে: ঢাকাপোস্ট

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

Development by: webnewsdesign.com