সুনামগঞ্জে অযত্ন-অবহেলায় পড়ে আছে ঐতিহ্যবাহী রাধামাদবের আখড়া

রবিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১০:৩৮ অপরাহ্ণ | 45

সুনামগঞ্জে অযত্ন-অবহেলায় পড়ে আছে ঐতিহ্যবাহী রাধামাদবের আখড়া

সুনামগঞ্জ জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জের সবচেয়ে প্রাচীণ স্থাপনা রাধামাদবের আখড়া। দুইশত বছরের পুরনো এই উপাসনালয়টি ইসকন মন্দির নামে পরিচিত। এটি উপজেলার পাথারিয়া ইউনিয়নের তালুকগাঁও গ্রামে  অবস্থিত।

ঐতিহাসিক এই নির্দশনটি সংস্কারের অভাবে অযত্ন আর অবহেলায় পড়ে আছে দীর্ঘদিন ধরে। একসময় যে আখড়ায় নিয়মিত ভক্তদের আরাধনা হতো,সঙ্খ আর ঢাকের তালের কীর্তন হতো আজ সেটি পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে ।



ঐতিহাসিক স্থাপনাটি রক্ষাণাবেক্ষণে কোনো উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের। ২০০ বছরের অধিক পুরনো এই স্থাপত্যটি প্রতœতান্ত্রিক নির্দশন হলেও এখনও দৃষ্টিতে পড়েনি সরকারের প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের। এখনই ঐতিহাসিক স্থাপনাটি সংস্কারের উদ্যোগ না নিলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে চিরতরে ব্যবহারের অনুপযোগি হওয়ার শঙ্কা করছেন ভক্ত অনুরাগিরা।

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,২০০ বছরের পুরনো এই রাধামাদবের আখড়াটি দেখবাল করছেন ইস্কন সম্প্রদায়। মন্দিরের সামনে একটি সাইনবোর্ড ঝুলানো । সাইনবোর্ডে মন্দিরে সংস্কার কাজ চলছে লেখা থাকলেও বাস্তবে সংস্কারের কোনো আলামত দেখা যায়নি। এক সময় মন্দিরের ভেতরে রাধামাদবের মূর্তিসহ বিভিন্ন মূল্যবান জিনিস থাকলেও ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় বর্তমানে বের করা হয়েছে সব। দীর্ঘদিন ধরে মন্দিরে ভেতরে পূর্জা অর্চণা বা কীর্তন করতে পারছেন না ভক্তবৃন্দ। দেয়ালের পলেফ খশে পড়ছে। দরজা জানালা ভেঙ্গেগেছে। অনেক স্থানেই ফাটল দেখা দিয়েছে। ছাদের একাধিক ছিদ্র দিয়ে বৃষ্টির পানি প্রবেশ করছে মেঝেতে। ক্ষতিগ্রস্ত স্থানে সংস্কার না করলে একসময় ঐতিহাসিক স্থাপনাটি বিনষ্ট হওয়ার  আশঙ্কা করছেন মন্দিরের ভক্ত অনুরাগিরা।

সংস্কারের পাশাপাশি মন্দিরটি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের আওতায় নেয়ার দাবি জানিয়েছেন রাধামাদব আখড়ার পরিচালক শ্যামল শখা কৃষ্ণ দাস।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ বলেন, পাথারিয়া রাধামাদবের আখড়াটি অনেক পুরনো। দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা তথা সুনামঞ্জের একটি ঐতিহাসিক স্থাপনা। যা ইস্কন সম্প্রদায় পরিচালনা করে থাকেন। মন্দিরটি বর্তমানে ক্ষতিগ্রস্ত। তাই ঐতিহাসিক স্থাপনাটি সরকারের প্রতœতত্ত্ব বিভাগের আওতায় নিয়ে রক্ষণাবেক্ষণে সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, আমি শীঘ্রই মন্দিরটি পরিদর্শণে যাবো। সরেজমিন পরিদর্শন করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের অবহিত করবেন বলে জানান তিনি।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

Development by: webnewsdesign.com