সিলেটে তারাপুর চা বাগানে চা শ্রমিকদের বিক্ষোভ, কাজ বন্ধ

শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ১১:৫৫ অপরাহ্ণ | 33

সিলেটে তারাপুর চা বাগানে চা শ্রমিকদের বিক্ষোভ, কাজ বন্ধ

সিলেটের তারাপুর চা বাগানে বকেয়া বেতন প্রদানের দাবি ও বাগানের জায়গায় দোকানকোটা নির্মাণের প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন সিলেটের তারাপুর চা বাগানের শ্রমিকরা। বিক্ষোভে বাগানের জায়গায় নির্মাণ করা দোকান উচ্ছেদের দাবি জানান তারা।

আজ শনিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চা শ্রমিকরা তারাপুর চা বাগান সংলগ্ন (সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের লিংক রোড) সড়ক অবরোধ করে রাখেন।

দুপুর ১টার দিকে জালালবাদ ও এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ গিয়ে তাদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দিয়ে তারাপুর বাগান পঞ্চায়েত কমিটির নেতৃবৃন্দ, বাগান ম্যানেজার এবং স্থানীয় কাউন্সিলরদের মধ্যে বৈঠকে বসে। তবে বৈঠকে সমস্যার কোনো সমাধান না হওয়ায় ফের রাস্তায় নামার হুমকি দিচ্ছেন শ্রমিকরা।

আন্দোলনে যোগ দেয়া একাধিক চা শ্রমিকের সাথে আলাপ করলে তারা জানায়, প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত বেতনের বকেয়া টাকা পুরোপুরি এখনো তাদের দেয়া হয়নি। সঙ্গে গত দুই সপ্তাহের রানিং বেতনও আটক পড়ে আছে। বকেয়া এই মজুরি প্রদানের দাবি জানালে তাদেরকে বাগানের ম্যানেজার-বাবুরা হুমকি-ধামকি দিচ্ছেন এমন অভিযোগও করছেন চা শ্রমিকরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চা শ্রমিক বলেন, ‘রাগীব আলী মেডিকেলের পাশে তারাপুর চা বাগানের কিছু জায়গা অবৈধভাবে বিক্রি করে দিয়েছে মালিকপক্ষ। এই জায়গায় ৩টি দোকানকোটা নির্মাণ করা হচ্ছে। রাতের আঁধারে এসব কাজ হয়। আমরা এসব নির্মাণাধীন দোকানকোটা উচ্ছেদের দাবি জানাই।’

সঞ্জীব রায় নামের এক আন্দোলনকর্মী বলেন- ‘দুপুরের বৈঠকে কোনো সুরাহা না হওয়ায় আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি, কাজে যাচ্ছি না। সন্ধ্যায় আমাদের পঞ্চায়েত কমিটির বৈঠক রয়েছে। বৈঠক থেকে কঠোর আন্দোলনের ঘোষণা দেওয়া হতে পারে।’

অভিযোগগুলোর বিষয়ে জানতে তারাপুর চা বাগানের ম্যানেজার রিংকু চক্রবর্তীর মুঠোফোনে একাধিকার কল দিলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়নের সিলেট ভ্যালির সভাপতি রাজু গোয়ালা বলেন, শ্রমিকদের অভিযোগ- তাদের বেতন-ভাতা বকেয়া রয়েছে। সেগুলো দিলে তারা কাজে যোগ দিবেন। তারা বৃহস্পতিবার থেকে কাজে যাচ্ছেন না। আর তাদের আরেকটি অভিযোগ হচ্ছে- চা বাগানের জায়গা থেকে দোকানকোটা উচ্ছেদ করতে হবে। এ বিষয়ে আজ সন্ধ্যার পরে বৈঠক রয়েছে। আশা করি সমাধান হবে।

জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল আলম গণমাধ্যমকে বলেন, সড়ক অবরোধের খবর পেয়ে আমরা গিয়ে অবরোধ তুলে দেই। এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। সন্ধ্যার পর তারা নিজেদের মধ্যে বৈঠক করে বিষয়টি সমাধান করবেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

Development by: webnewsdesign.com