কুলাউড়ায় শ্রমিকদের বিরোধ নিষ্পত্তি, যান চলাচল স্বাভাবিক

বৃহস্পতিবার, ০৫ নভেম্বর ২০২০ | ১১:২২ অপরাহ্ণ | 179

কুলাউড়ায় শ্রমিকদের বিরোধ নিষ্পত্তি, যান চলাচল স্বাভাবিক
ছবি নিজস্ব

নিউজ ডেস্ক:: মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় সিএনজি অটোরিকশা ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা শ্রমিকদের মধ্যকার সৃষ্ট বিরোধ অবশেষে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ এ কে এম সফি আহমদ সলমানের হস্তক্ষেপে শান্তিপূর্ণ সমাধান নিষ্পত্তি হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকের মাধ্যমে এ সমাধান নিষ্পত্তি হয়।

রাত থেকেই শহরে সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা গাড়ি চলাচলের জন্য উভয়পক্ষ সম্মত হয়। এর আগে বুধবার সকাল ১১টায় কুলাউড়া শহরে সিএনজি অটোরিকশা ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা শ্রমিকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এর কারণে বৃহস্পতিবার সারা দিনব্যাপী শহরের প্রধান সড়কে একটিও সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল করতে দেখা যায়নি।



যার কারণে অনেক যাত্রী পায়ে হেঁটে শহরে প্রবেশ করে কাজ শেষ করে আবার পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরেন। এতে যাত্রী ও সাধারণ জনগণকে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ এ কে এম সফি আহমদ সলমানের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) সাদেক কাওসার দস্তগীর, কুলাউড়া পৌরসভার মেয়র শফি আলম ইউনুছ, কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইয়ারদৌস হাসান, সিনিয়র সাংবাদিক আজিজুল ইসলাম।

এছাড়া সিএনজি অটোরিকশা সমিতির পক্ষে উপজেলা শাখার সভাপতি আলী হোসেন জাহাঙ্গীর ও সাধারণ সম্পাদক সোহাগ মিয়াসহ ৫ শ্রমিক নেতা এবং ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা সমিতির পক্ষে সভাপতি ইসলাম উদ্দিন আকাশ ও সাধারণ সম্পাদক ছদরুল আলমসহ ৫ জন শ্রমিক নেতা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বৃহস্পতিবার রাত থেকে গাড়ী চালু করার সিদ্ধান্ত হয়। কুলাউড়া শহরে আড়াইশত ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলবে, এর বেশি চললে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এছাড়া পৌর শহরে সিএনজি অটোরিকশা রাস্তার দু’পাশে না রেখে রাস্তার একপাশে রাখা এবং যত্রতত্র স্থানে সিএনজি না রাখার সিদ্ধান্ত হয়।

বিশেষ করে উভয় সংগঠনের বেশি ক্ষতিগ্রস্ত গাড়ী মালিকদের উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়রের পক্ষ থেকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) সাদেক কাওসার দস্তগীর বলেন, সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত রিকশা শ্রমিকদের সৃষ্ট সমস্যায় উপজেলা চেয়ারম্যান ও পুলিশ প্রশাসন কঠোর থাকায় বড় ধরণের সংঘাত এড়ানো সম্ভব হয়েছে।

বৈঠকে উভয় সংগঠনের নেতাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে তারা প্রত্যেকে নিয়মনীতি মেনে গাড়ি চালানোর জন্য। যারা এর ব্যত্যয় ঘটাবে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আর কোন সংগঠন নতুন করে সংঘাতে জড়িয়ে আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটালে তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ কঠোর হয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ এ কে এম সফি আহমদ সলমান জানান, বিষয়টি আগামী রোববার নিষ্পত্তি করার কথা ছিলো। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ট্রেনিংয়ের জন্য কুমিল্লায় অবস্থান করায় তাঁর অনুপস্থিতিতে জনদুর্ভোগের কথা চিন্তা করে জরুরী ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের নিয়ে বৈঠকের আয়োজন করা হয়। বৈঠকে পুলিশ প্রশাসনের উপস্থিতিতে বিষয়টি উভয় সংগঠনের নেতারা মেনে নিয়েছেন। এছাড়া স্ব স্ব অবস্থানে নিয়মনীতি মেনে সহনশীল আচরণ করে কোন ধরণের সংঘাতে না জড়িয়ে উভয় সংগঠনের শ্রমিকদের গাড়ী চালানোর নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য, বুধবার ৪ নভেম্বর সকাল ১১টায় কুলাউড়া শহরে সিএনজি অটোরিকশা ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা শ্রমিকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠে পুরো কুলাউড়া শহর। এতে বিভিন্ন স্থানে প্রায় শতাধিক সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এসময় উভয়পক্ষের দাওয়া পাল্টা দাওয়ায় প্রায় ৩২ জন শ্রমিক আহত হন। পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। প্রায় তিন ঘন্টাব্যাপী চলা এ সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে প্রশাসন যখন হিমশিম খায় তখন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ এ কে এম সফি আহমদ সলমান সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা শ্রমিকদের সৃষ্ট সমস্যার বিষয়ে দ্রুত সুষ্ঠু সমাধানের আশ্বাস প্রদান করলে উভয় শ্রমিক সংগঠনের দায়িত্বশীল নেতাসহ সাধারণ শ্রমিকরা শান্ত হয়।

সৌজন্যে: সিলেটভয়েস

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

Development by: webnewsdesign.com